ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress) গাইডলাইন

ওয়ার্ডপ্রেস কিঃ

ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটি CMS (Content Management System)। এই ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা সারা বিশ্বের ৩৫% ওয়েবসাইট তৈরি করা ওয়ার্ডপ্রেস সহজভাবে বলতে গেলে ওয়েবসাইটের কনটেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিষ্টেম। কনটেন্ট হলো ওয়েবসাইটের উপাদান। ছবি, লেখা ও যাবতীয় তথ্য আপনি যা একটি ওয়েবসাইটে দেখে থাকেন তাই হলো কনটেন্ট। এইগুলি ম্যানেজ করাই হলো Content Management. আর ওয়ার্ডপ্রেস হলো এমন একটি কনটেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিষ্টেম। শুধু তাই নয়, ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে বিশ্বের এক নাম্বার CMS. ওয়েবসাইট বানানোর জন্য এর জনপ্রিয়তা খুবই বেশি। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে পারলে নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে আর চিন্তিত হতে হবে না এবংআত্নবিশ্বাস ও তুঙ্গে উঠে যাবে।  

কেনো আমরা শিখবোঃ

আপনি যদি চান অনলাইন থেকে ইনকাম ও অনলাইন ক্যারিয়ার গড়বেন, তাহলে আপনি যে কোন সেক্টরেই কাজ করেন না কেনো, আপনার ওয়ার্ডপ্রেস শিখা থাকলে তা আপনার জন্য বিশাল এক প্লাস পয়েন্ট। তাছাড়া আপনি যদি যে কোন ধরনের ওয়েবসাইট বানাতে চান, তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস শিখার বিকল্প নেই বর্তমান বাজারে। ওয়ার্ডপ্রেস আপনাকে দিবে কোডিং ছাড়া প্রফেশনাল ওয়েবসাইট বানানোর ব্যবস্থা আর আপনি যদি মনে করেন ওয়েব ডেভেলাপমেন্টে ক্যারিয়ার গড়বেন তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস শেখা আপনার কোনও বিকল্প নেই। ওয়ার্ডপ্রেস পেয়ে যাবেন রেডিমেট হাজার হাজার থিম ও টেম্পলেট পাওয়া যায় যা দিয়ে আপনি খুব সহজেই একটি প্রফেশনাল ওয়েবসাইট বানাতে, মেইনটেইন  এবং কন্ট্রোল করতে পারবেন।

কাদের জন্য উপযুক্তঃ

যারা পরিশ্রম করতে পারবেন শিখার আগ্রহ থাকবে এবং ধৈর্য ধরে শিখতে পারবেন একমাএ তাদের জন্যই ওয়ার্ডপ্রেস এটা যে ১০০% কোডিং ছাড়া করা যাবে তা ও না তাই কোডিং এর বেসিকটা জানা থাকলে অনেক ভাল করা যায় যেমন HTML,CSS। আপনার যদি কোডিং করা ইচ্ছাশক্তি থাকে তাহলে আপনি এই সেক্টরে আসতে পারেন ।অনেক সময় ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেবেলপলেন্ট বা প্রোগামিং করতে গেলে কোডিং করতে হয় এই জন্য কোডিং জানাটা ও প্রয়োজন। আর যারা কোডিং একদমই পছন্দ করেন না এই সেক্টরে না আসাটাই ভালো আমি মনে করি।

মার্কেটপ্লেসে চাহিদা কেমনঃ

সারা বিশ্বে বর্তমানে যতগুলো মার্কেটপ্লেস আছে যেমনঃ আপওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিলান্সার সবগুলোর মধ্যেই ওয়ার্ডপ্রেস এর চাহিদা অনেক বেশী। বিশ্বে প্রতিদিন যতগুলো ওয়েসাইট তৈরি হয় এই সবগুলোই এই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি করা হয়।এই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ছোট ছোট সার্ভিস দিয়ে আপনি এই মার্কেটপ্লেস থেকে  টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ইনকাম এর সম্ভাবনা কেমনঃ

একজন ভালো মানের ওয়ার্ডপ্রেস এক্সপার্ট এর ইনকাম প্রতি মাসে এভারেজ ১-২ হাজার ডলার । ইন্টারন্যাশনাল ষ্টান্ডার্ড অনুযায়ী আপনি এভারেজ মানের একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে ১০০ ডলার শুরু করে ২০০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এটি ১০০-৫০০ ডলারের মধ্যেই হয়ে থাকে। আর একটি ভালো মানের ওয়েবসাইট বানাতে আপনার সময় লাগবে সর্বোচ্চ ৩-৪ দিন। তাহলে বলা যেতে পারে যে, আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ভালো জানলে মাসে মাত্র ৩ টি কাজ করলেও ৬০০ ডলার অর্থাৎ ৫০,০০০ টাকা আয় করা খুব একটা কঠিন নয়। তবে তাছাড়া অনেক সময় ই আপনি টুকটাক সমস্যা সমাধান করে দেওয়ার কাজ পারেন যা করতে হয়তো আপনার মাত্র ১৫ মিনিট লাগবে সবমিলিয়ে কিন্তু আপনার আয় হবে ১০-১০০ ডলার। এইটি খুব মজার ব্যাপার। তবে ব্যাপার হলো যে, আপনাকে এক্সপার্ট হতে হবে। কোন রকম কাজ শিখে আয় করা সম্ভব নয় এই সেক্টরে।

শিখতে হলে আপনার জন্য কি কি শেখা প্রয়োজন

আপনাকে সর্বপ্রথম HTML and CSS ভালোমতো শিখতে হবে। তার পর আপনি ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে আসুন। তা না হলে আপনি ঝামেলায় পড়ে যাবেন।মনে রাখবেন যে, ওয়ার্ডপ্রেস হলো ওয়েব ডেভেলাপমেন্টের আওতাধীন আর HTML and CSS হলো ওয়েব ডিজাইনিং এর আওতাধীন। আচ্ছা, তার পর আপনার দরকার হবে বেসিক PHP দক্ষতা। PHP হলো আরো একটা বেশ জনপ্রিয় ও পাওয়ারফুল ওয়েব প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ। অনেক ক্ষেত্রে হয় যে, অনেক নতুন শিক্ষার্থীরা PHP শিখতে বেশ ঝামেলায় পড়ে যায়। তাই আপনার একদম Core PHP জানার দরকার নেই। আপনার বেসিক Syntex জানলেই চলবে। আর আপনি যখন এডভান্স হবেন, তখন আপনাকে আরো একটি ল্যাংগুয়েজ শিখতে হবে তা হলো Javascript. অত্যান্ত মজাদার একটি ল্যাংগুয়েজ এটি। শেষ কথা হলো যে, আপনাকে HTML, CSS, PHP, শিখতেই হবে। তার মধ্যে PHP বেসিক জানলেও কাজ করা যায়। আপনি যখন এডভান্স হবেন তখন আপনাকে অবশ্যই Javascript, Jquery, Ajax এই ল্যাংগুয়েজগুলি শিখতে হবে। কাজ করতে করতে যখন আপনি এক্সপার্ট হবেন তখন আপনি সকল ল্যাংগুয়েজই ভালোমতো আয়ত্ব করে নিবেন।

আর হ্যা। আপনাকে অবশ্যই ইংরেজীতে মোটামোটি ভালো দক্ষতা লাগবে। কারন সবকিছু আপনাকে ইংরেজীতেই করতে হবে।তবে খুব বেশি ভালো না হলেও প্রাকটিস করলে আস্তে আস্তে ইংরেজীটা আয়ত্বে এসে যায়। ইংরেজী এতো কঠিন কিছুই নয়।

তাহলে চলুন এইবার জেনে নেই কিভাবে শিখবেনঃ

প্রথমে আপনাকে জানতে হবে ওয়ার্ডওপ্রেস এর সাধারন ফাংশন। অর্থাৎ ওয়ার্ডপ্রেস কিভাবে কাজ করে থাকে। এক্ষেত্রে কোন কোডিং করার ঝামেলা নেই। একটা ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের Theme হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন অংশ। অর্থাৎ, একটি থিম এর উপরই মূলত নির্ভর করে যে, আপনার ওয়েবসাইটটি কি রকম দেখতে হবে এবং কোন কোন ফাংশন থাকবে আপনার ওয়েবসাইটে। এবং সকল তথ্যই ডায়নামিক হবে। অর্থাৎ, আপনি Dashboard থেকে আপনি সহজেই সকল কনটেন্ট আপনার ইচ্ছামতো ইডিট করতে পারবেন। এবার আপনাকে শিখতে হবে যে, একটা HTML টেমপ্লেটকে কিভাবে আপনি ডায়নামিক ভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ফাংশনে রুপান্তরিত করতে পারবেন। মানে হলো যে, আপনার ওয়েবসাইট আগের মতোই দেখাবে কিন্তু আপনি চাইলে, ওয়ার্ডপ্রেসের ড্যাশবোর্ড থেকে একটি নতুন কিছু যুক্ত করলে তা অটোমেটিক আপনার ওয়েবসাইটে যুক্ত হয়ে যাবে। এইটাই হচ্ছে ডায়নামিক। যার বাংলা অর্থ হলো পরিবর্তনশীল। আপনার চাহিদা অনুসারে আপনি পরিবর্তন করতে পারবেন।

তাহলে এখন আপনাকে শিখতে হবে কিভাবে আপনি PSD to HTML এ করা একটা টেমপ্লেটকে ওয়ার্ডপ্রেসে কনভার্ট করতে পারেন। অর্থাৎ, HTML দিয়ে করা একটা ওয়েবসাইটকে কিভাবে আপনি ডায়নামিক করবেন তা শিখতে

থিম ডেভেলাপমেন্ট শেখার পর আপনাকে শিখতে হবে ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলাপমেন্ট। ইতিমধ্যেই আপনি জেনে গেছেন যে, প্লাগিন অত্যন্ত সুবিধাজনক একটি জিনিস যা দিয়ে নিজের ইচ্ছা মতো যে কোন জিনিস বানিয়ে নিতে পারেন।

Write a comment